×
অনুসন্ধান
EveryBengaliStudent.com
জীবন এবং ঈশ্বর বিষয়ক প্রশ্নগুলি
 আবিস্কার করার জন্য নিরাপদ স্থান
জীবনের প্রশ্নগুলি

একটি মিথ পাইপ এবং একটি বাইবেল

WhatsApp Share Facebook Share Twitter Share Share by Email More PDF

জেনিফারের ঘটনা:

বিশ বছরের কিছুটা বেশি বয়সী থাকা অবস্থায় আমি বেশ কর্মঠ থাকার কারণে আমার একটি বাড়ি, একটি নৌকা, অনেক বন্ধুবান্ধব, একটি সুন্দর পরিবার, এবং ভাল একটি চাকরি ছিল। তারপর চোখের পলকেই আমার এই জীবনটা ধ্বংসের দিকে পতিত হল।

আনন্দের জন্য সর্বদা ঝুঁকি গ্রহণকারী আমি নেশায় আসক্ত হওয়া ছাড়া কোন উপায় দেখলাম না।

আমি বিনোদনমূলক নেশা গ্রহণকারী এবং মদ্যপায়ী থেকে ১৩ বছর ধরে মেথামফেটামিনের দৈনিক ব্যবহারকারীতে পরিণত হয়েছিলাম এবং আরও ৬ বছর তা চালিয়ে যেতে চেয়েছিলাম। এই যাত্রার কোন এক জায়গায় এটা আমার চাহিদায় এবং জীবন্ত নরকে পরিণত হয়েছিল। একজন নেশাগ্রস্ত হিসেবে আমি ঘরছাড়া, গাড়িহীন, এবং আমার পরিবারের সুন্দর সম্পর্কগুলো নষ্ট হয়ে গিয়েছিল।

কয়েকবছর নেশায় আসক্ত হওয়া অবস্থায়, আমি ঈশ্বরের কাছে কাঁদতে শুরু করলাম। অবসন্ন এবং দোষী, হওয়ায় নিজেকে সুখী করার জন্য নেশাজাতীয় দ্রব্যের প্রতি আমার নির্ভরশীলতাকে আমি ঘৃণা করতাম। আমি আমার আগের জীবনটা ফিরে পেতে চাইতাম, কিন্তু যখনই আমি আমার এই সবকিছু ছেড়ে দিতে চাইতাম তখনই আমার হতাশা এতটাই তীব্র হয়ে উঠত যে আমি সেটা থেকে মুক্তির জন্য আবারও নেশার দিকে ফিরে যেতাম।

আমার মনে হয় পুরোটা জীবনে আমি অতিরিক্ত অর্জনকারী হিসেবে, আমার করা কাজের জন্য সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য বলে বিবেচিত হয়েছি। আমি ভুলভাবে এটা বিশ্বাস করতাম যে কোন কিছু করার জন্য আমি যে এত চেষ্টা করি এবং নিজেকে পরিষ্কৃত রাখি এজন্যই হয়ত ঈশ্বরের কাছে আমি গ্রহণযোগ্য।

নিজেকে পরিষ্কৃত করার জন্য আমি আমার সম্পদ বিক্রি করে দিলাম। আমি অন্য প্রদেশে বসবাসকারী স্টিভ নামের একজন সঙ্গীতজ্ঞের সাথে ভালবাসার সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলাম, এবং তাকে এটা বিশ্বাস করাতে চেয়েছিলাম যে যদি আমি আমার পরিবেশ ত্যাগ করতে পারি তাহলে আমি নিজেকে পরিষ্কৃত করতে পারব।

আমি ভেবেছিলাম যে এই উদ্যোগটি শুধু আমাকে পরিষ্কৃতেই করবে না বরং আমাকে ঈশ্বরের কাছে গ্রহণযোগ্য করে তুলবে। আমি এটাও ভেবেছিলাম যে স্টিভের সাথে আমার যে ভালবাসা আছে সেটাই আমাক পরিতৃপ্ত করবে।

কিন্তু এটা কাজে আসল না। আমার নতুন বাসায় আসার তিন সপ্তাহ পরেই আমি আবারও নেশায় আসক্ত হয়ে পড়লাম যার ফলে আমাদের সম্পর্কে ভাঙ্গন হল। দেড় বছর পর, আমি আমার বাসায় ভঙ্গচূর্ণ এবং ঘরহীনভাবে ফেরত আসলাম।

আমি সিদ্ধান্ত নিলাম যে আমার পরবর্তী উদ্যোগ হবে আমার বাবার কাছে গিয়ে সবকিছু স্বীকার করা এবং সাহায্য চাওয়া। আমার শুধুমাত্র সাহসের প্রয়োজন ছিল। কিন্তু আমি তা করার আগেই, অপ্রত্যাশিতভাবে আমার বাবা ৫৪ বছর বয়সে হৃৎযন্ত্র বন্ধ হয়ে মারা যান। যখন আমি আমার বাবার মৃত্যুর খবরটি ফোনে শুনলাম তখন আমার মনে হল আমার হৃৎপিন্ড আমার বুক থেকে বেরিয়ে চলে যাবে। বাবার ছোট্ট মেয়ে হওয়ার কারণে, তিনি আমাকে নি:শ্বর্তভাবে ভালবেসেছেন আর আমি তাঁকে ছাড়া বাঁচতে পারতাম না।

আমি ঈশ্বরকে বললাম যে আমি আর কখনই পরিষ্কৃত হতে চাই না, কারণ প্রিয়জনকে হারানোর কষ্ট এবং দু:খপ্রকাশের বিষয়টি সহ্য করা নেশা করা ছাড়া অসম্ভব। তাই আমি চেষ্টা করা বন্ধ করলাম। আর ঈশ্বর আসলে এটাই চাইছিলেন।

আমার একজন চমৎকার খ্রীষ্টিয়ান বন্ধু যার সাথে আমি নেশা করেছি, সে আমাকে কোন বিচার ছাড়াই ভালবাসে। সে আমাকে দু:খের সময় সান্ত্বনা দিয়েছে এবং আমার কাছে যীশুর বিষয়ে বলেছে। ঈশ্বরের দয়ার পাবার আকাঙ্খিত আমি তার কথায় সিক্ত হলাম। সে আমাকে গীর্জায় যাবার জন্য আমন্ত্রণ জানাল কিন্তু আমি ভাবতাম যে যারা গীর্জায় যায় তারা নিখুঁত মানুষ এবং আমি একজন নেশাগ্রস্থ বলে তারা হয়ত আমাকে গ্রহণ করবে না। যীশু -হ্যাঁ, গীর্জা-না। আমার বন্ধু আমাকে খ্রীষ্টিয়ান একটি বেতার কেন্দ্রের কথা বলল আর আমি সেটা শোনা শুরু করলাম।

ঈশ্বরকে কোন প্রতিজ্ঞা না করা ছাড়াই আমার মনে হল আমার কিছু একটা করা দরকার, আমি এক হাতে মিথ পাইপ এবং অন্য হাতে বাইবেল নিয়ে ঈশ্বরের কাছে আসলাম।

আমি এমনটা এক বছরের বেশি সময় ধরে এটা করেছি আর চমৎকার কিছু ঘটল।

আমি উপলব্ধি করলাম যে ঈশ্বর আমাকে আমার বাবার মত নি:শ্বর্তভাবে ভালবেসেছেন। আমি আসক্তিকে একটি রোগ বা বেঁচে থাকার সঙ্গী হিসেবে নিতে চাচ্ছিলাম না, কিন্তু এর পরিবর্তে আমার পাপ যেটার জন্য যীশু ক্রুশে মৃত্যুবরণ করেছেন আর তাই আমার জীবনে শাসনের দরকার নেই।

আসক্তিতে জড়িয়ে থাকা সত্ত্বেও আমি তাঁর কাছে স্বাধীনতার মাধ্যমে এসেছি আর তিনি আমাকে ভেতর থেকে সুস্থ করলেন। তিনি আমাকে স্বাধীনতা দিতে চাচ্ছিলেন এবং আমার অনন্তরে নতুন এক জীবনের সৃষ্টি করেছিলেন।

আমি ঈশ্বরের বাক্যের (বাইবেল) মাধ্যমে তাঁর সম্পর্কে সত্য জানতে পেরে পরিতৃপ্ত হয়েছিলাম। আমি আমার জীবন সম্পর্কে ভিন্ন আঙ্গিকে চিন্তা করতে শুরু করলাম এবং কীভাবে তার উপর বিশ্বাস করা যায় সেটা নিয়ে চিন্তা করতে শুরু করলাম। আমি যীশুর সাথে তীব্র ভালবাসায় জড়িয়ে পড়লাম এবং আমার বিশ্বাস বৃদ্ধি পেতে থাকল। তিনি আমাকে পরিবর্তন করতে শুরু করলেন, আমাকে নতুন আকাঙ্খা এবং আমার জীবনের দুর্বল ক্ষেত্রেগুলোতে শক্তি দান করা শুরু করেছিলেন।

আমার আসক্তির গভীরতম পর্যায়ে, প্রভু আমার আশাহীন জীবনে দারুণ আনন্দ দান করেছেন! আমি ১২ বছরের বেশি সময় ধরে নেশা থেকে মুক্ত আর আমার সেগুলোর প্রতি কোন আকাঙ্খা নেই। আমি যা কিছু হারিয়েছিলাম সে সব কিছুই ঈশ্বর আমাকে ফিরিয়ে দিয়েছেন, এমনকি স্টিভের সাথে বিয়েও তিনি দিয়েছেন বলেই সম্ভব হয়েছে। আমি এবং আমার মা আগের থেকে অনেক ঘনিষ্ঠ হয়েছি এবং আমি আনন্দিত যে আমি আমার বাবার সাথে আবারও স্বর্গে গিয়ে মিলিত হব। আমি অন্যদেরকে এই একই পরিস্থিতি যেটা হল যীশুর ভালবাসা এবং স্বাধীনতা খুঁজে পেতে দেখেছি এবং সাহায্য করেছি। ঈশ্বরের সাথে সম্পর্ক স্থাপনের মাধ্যমে সকল কিছুই পরিবর্তিত হয়।

 আমার একটি প্রশ্ন বা মন্তব্য আছে…
 কিভাবে ঈশ্বরের সাথে একটা সম্পর্ক শুরু করেন

এই প্রবন্ধটি শেয়ার করুন
WhatsApp Share Facebook Share Twitter Share Share by Email More